বউয়ের কথায় ক্রিকেটে ব্যাট দিয়ে পিটিয়ে নিজের মাকে মেরে ফেলে ছেলে-

রংপুরে মোবাইল ফোন লুকিয়ে রাখায় রাবেয়া বেগম (৫০) নামে এক মা’কে ক্রিকেট ব্যাট দিয়ে পিটিয়ে হত্যা করেছে তারই দত্তক নেয়া ছেলে। এ ঘটনায় ভারসাম্যহীন দত্তক ছেলে রাকিবকে আটক করেছে পুলিশ।
শনিবার (১৭ জুলাই) রাতে নগরীর উত্তর মুনশিপাড়ায় এ ঘটনা ঘটে। নিহত রাবেয়া বেগম ওই এলাকার মৃত ইকরামুল ইসলামের স্ত্রী।
পুলিশ ও এলাকাবাসী জানায়, নিঃসন্তান ইকরামুল ইসলাম ও রাবেয়া বেগম দম্পতি। রাবেয়ার বাবার বাড়ি পাবনায়। সেখান থেকে মাত্র এক বছর বয়সী রাকিবকে দত্তক নিয়ে আসেন এই দম্পতি। দুই বছর আগে ইকরামুল ইসলাম মারা যান। রাকিব মানসিক ভারসাম্যহীন। এর আগেও অনেকবার অমানবিকভাবে মারপিট করলেও নিঃসন্তান বিধবা রাবেয়া বেগম তাকে নিয়ে একা ওই বাড়িতে বসবাস করতেন।
শনিবার রাতে মোবাইল ফোন লুকিয়ে রাখায় রাবেয়া বেগমকে ক্রিকেট ব্যাট দিয়ে আঘাত করে দত্তক ছেলে রাকিব। রাবেয়া বেগমের চিৎকারে প্রতিবেশীরা ছুটে আসেন। সেখানে ঘরের মেঝেতে রক্তাক্ত অবস্থায় পড়ে ছিলেন রাবেয়া বেগম। লোকজনের উপস্থিতিতেও ক্রিকেটের ব্যাট দিয়ে মায়ের মাথায় উপর্যুপরি আঘাত করতে থাকে রাকিব। তাকে থামানোর আগে ঘটনাস্থলেই প্রাণ হারান রাবেয়া বেগম। এ সময় প্রতিবেশীদের উদ্দেশ্যে রাকিব চিৎকার করে বলেন, মোবাইল ফোন লুকিয়ে রাখায় নিজে তার মা’কে পিটিয়ে মেরে ফেলেছে।
খবর পেয়ে রাতেই ঘটনাস্থল থেকে হত্যাকাণ্ডে ব্যবহৃত ক্রিকেটের ব্যাটসহ রাকিবকে আটক করে পুলিশ।
বিষয়টি নিশ্চিত করে রংপুর মহানগর পুলিশের কোতোয়ালি থানার এসআই এরশাদ আলী বলেন, ঘটনাস্থল থেকে রাবেয়া বেগমের লাশ রাতেই উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *