কাবাডি খেলার উপকারিতা ‌। কাবাডি খেলার নিয়ম

কাবাডি খেলার উপকারিতা

কাবাডি খেলার উপকারিতা ‌। কাবাডি খেলার নিয়ম।

হ্যালো প্রিয় ভিজিটর। আসসালামু আলাইকুম।  কেমন আছেন সবাই। আশা করি ভালো আছেন। আজকে আমরা কথা বলবো কাবাডি খেলার উপকারিতা নিয়ে।

[box type=”download” align=”aligncenter” class=”” width=””]কাতার বিশ্বকাপ সময়সূচি ২০২২ Pdf[/box]

কাবাডি খেলা কি ?

 

বিশ্বের বিভিন্ন জনপ্রিয় খেলার মধ্যে অন্যতম একটি খেলা হলো কাবাডি । বাংলাদেশে এই খেলাটি হাডুডু নামে পরিচিত। কাবাডি  বাংলাদেশের জাতীয় খেলা । বাংলা অভিধানে হাডুড এর পরিচয়ের ক্ষেত্রে বলা হয়েছে, দুটি দলের মধ্যে প্রতিযোগিতা মূলক যে খেলায় এক পক্ষের কোন খেলোয়াড়কে প্রতিপক্ষের কোর্টে গিয়ে এক বা একাধিক ব্যাক্তিকে ছুঁয়ে নিজ কোর্টে ফিরে আসতে হয় ।

খেলোয়াড়ের দম শেষ হয়ে যায়নি একথা প্রমাণ দিতে ক্রমাগতভাবে কাবাডি…. কাবাডি…. কাবাডি….. শব্দটি জোরে জোরে উচ্চারণ করতে হয় । দুঃখ জনক হলেও সত্যি যে এই খেলাটি বর্তমানে বিলুপ্ত হতে যাচ্ছে। আগের মতো গৌরবের সাথে এটি এখন আর তেমন একটা খেলা হয় না । তাই এখনই খেলোয়াড় বিশেষজ্ঞ সচেতন হতে হবে। উপমহাদেশের ঐতিহ্যবাহী এই খেলাকে পুনঃপ্রতিষ্ঠার উদ্যোগ নেওয়া প্রয়োজন ।

কাবাডি খেলার বয়স :

 

কাবাডি খেলার নির্ধারিত কোন বয়স নেই। তবে সাধারণত কিশোর বয়স থেকে শুরু করে মধ্য বয়সী যে কোন লোক এটি খেলতে পারে। আন্তর্জাতিক কাবাডি ফেডারেশনগুলো নারীদের ও এই খেলার সুযোগ করে দিয়েছে ।

কাবাডি খেলার স্থান:

 

কাবাডি খেলার উপযুক্ত স্থান হলো গ্রাম । গ্রামে বিশাল বিশাল মাঠ রয়েছে। আবাদী জমিন আছে । সেখানে প্রয়োজন মতো সীমানা নির্ধারণ করে চমৎকার খেলার উপযোগী করা যায়।
কিন্তু ইট পাথরের শহরে সেটা কঠিন কাজ। শহরে পর্যাপ্ত জায়গা পাওয়া যায় না । শক্ত মাঠকে খেলার উপযোগী করতে ও অনেক কষ্ট করতে হয়।
এ জন্য বিভিন্ন টিভি চ্যানেলের পক্ষ থেকে কাবাডি খেলার আয়োজন গুলো বাংলাদেশের প্রত্যান্ত গ্রামাঞ্চলে করা হয়।
তবে ইচ্ছে থাকলে উপায় হয় এ কথার জোরে শহরেও কেউ আয়োজন করতে পারেন।

 

কাবাডি খেলার নিয়ম:

কাবাডি খেলার নিয়ম

কাবাডি খেলার নিয়মের ক্ষেত্রে তিনটি জিনিস ফলো করতে হয় ।‌

১. মাঠ

২. খেলোয়ার

৩ সময় ।‌

কাবাডি খেলার মাঠ:

কাবাডি খেলার বালকদের মাঠ লম্বায় অন্তত ১২.৫০ মিটার চওড়ায় ১০ মিটার হয় । এবং বালিকাদের কাবাডি খেলার মাঠ ১১ মিটার এবং চওড়া ৮ মিটার হয় । খেলার মাঠে ঠিক মাঝখানে একটি লাইন টানা থাকে যাকে মধ্যরেখা বা চরাই লাইন বলে । এই রেখার দুই দিকে দুই অর্ধ দুটি লাইন টানা থাকে যাকে কোল‌ লাইন বলে। আউট খেলোয়াড়দের জন্য মাঠের দুইপাশে এক মিটার দূরে দুটি লাইন থাকে যাকে লবি বলা হয় ।‌

কাবাডি খেলোয়াড়:

প্রতি দলে ১২ জন খেলোয়াড় অংশ নেয় । কিন্তু প্রতি দলের সাতজন খেলোয়াড় একসাথে মাঠে নামে । বাকি পাঁচজন অতিরিক্ত খেলোয়াড় হিসেবে থাকে ‌।‌ খেলা চলাকালীন সর্বাধিক তিনজন খেলোয়াড় পরিবর্তন করা যাবে।

কাবাড খেলার সময় :

পাঁচ মিনিট বিরতি সহ দুই অর্ধে পুরুষদের ২৫ মিনিট করে এবং মেয়েদের ২০ মিনিট করে খেলা হবে । খেলা শেষে যে দল পয়েন্ট বেশি পাবে সেই দল জয়ী বলে গণ্য হবে । দু দলের পয়েন্ট সমান হলে দু’অর্ধে আরো পাঁচ মিনিট করে খেলা হবে । এভাবেই বিজয়ী দলকে খুঁজে নিতে হবে ।

কাবাডি খেলার উপকারিতা:

 

কাবাডি খেলার বেশ কয়েকটি উপকার রয়েছে। নিম্নে কয়েকটি উল্লেখ করা হলো ।

১. সময় পার করা

২. মানসিক স্বস্তি পাওয়া

৩. সাধারণ জ্ঞান বাড়ে

৪. ব্যায়াম হওয়া

৫. ভালো ঘুম হওয়া ।

সময় পার করা:

 

অনেকে বসে থাকতে থাকতে বিরক্ত হয়ে যায় । অস্বস্তি বোধ করে সর্বত্র । কোন কিছুতে সহজে মন বসতে চায় না । তারা কাবাডি খেলতে পারে । এতে তাদের সহজেই সময়টা পার হয়ে যাবে । এবং বেশ ভালও লাগবে ।

মানসিক স্বস্তি পাওয়া:

পারিবারিক কোন কলহ কিংবা ব্যবসায়িক অবনতি অথবা চাকরি ক্ষেত্রের বিভিন্ন চাপ মানসিক স্বস্তি কেড়ে নেয় । এক্ষেত্রে মানসিক শাস্তি পাওয়ার জন্য খেলাধুলা একটি বড় মাধ্যম হতে পারে । আর খেলাধুলার ক্ষেত্রে আদর্শ খেলা হল কাবাডি খেলা । ট্রাই করে দেখা যেতে পারে ।

সাধারণ জ্ঞান বাড়ে:

কথায় আছে অলস মস্তিষ্ক শয়তানের কারখানা । ঘরে বসে শুয়ে দিন কাটালে মাথায় সব আজগুবি চিন্তা ভির করে ।‌ মুখ দিয়ে অনর্গল উদ্ভট সব কথাবার্তা বাহির হয় । আর যদি ব্রেনটা ব্যস্ত থাকে কোন কাজে তাহলে ব্রেন আরো সচল হয়। জ্ঞান বাড়ে । যারা জ্ঞান বাড়াতে আগ্রহী তারা কাবাডি খেলার নিয়ম-কানুন, পক্ষ-বিপক্ষের কৌশল প্রয়োগ ফলো করতে পারে । তাছাড়া এই খেলা গুলোতে খুব হাসাহাসি এবং আনন্দ হয়ে থাকে । অনেক ক্ষেত্রে আনন্দ উল্লাস ও মস্তিষ্কের উপকার সাধন করে থাকে ।

কাবাডি কি ও কেন

ব্যায়াম হওয়া:

 

আজকাল মানুষ প্রযুক্তি নির্ভর হয়ে অনেকটাই অকেজো এবং অলস হয়ে যাচ্ছে । এর ফলে মানুষের শরীরে বাসা বাঁধছে বিভিন্ন প্রকার রোগ । বিশেষ করে বাত ব্যথা ,কোমর ব্যথা ইত্যাদি । সবাই ছুটছে ডাক্তারের কাছে । তারা দিচ্ছে ওষুধের বাহারি লিস্ট । তাতেও অনেকের কাজ হচ্ছে না । শেষ পর্যন্ত ডাক্তারগণ নিয়মিত ব্যায়ামের পরামর্শ দিচ্ছেন । আর হ্যাঁ এক্ষেত্রে অন্যান্য ব্যায়ামের পাশাপাশি কাবাডি খেলা একটি আদর্শ ব্যায়াম হতে পারে । অসুখ-বিসব ছাড়াও শরীরের ফিটনেস ঠিক রাখতে ব্যায়াম বেশ কার্যকর ভূমিকা পালন করে । এজন্য ও খেলাধুলার প্রতি মনোযোগী হওয়া যেতে পারে।

বাংলাদেশ বনাম আর্জেন্টিনা বিশ্বকাপ কাবাডি ভিডিও

ভালো ঘুম হওয়া:

 

অনেক দুশ্চিন্তা এবং অসুখের কারণে অনেকের ভালো ঘুম হয় না । অনেকের আবার অসুখ-বিসুখ না থাকলেও সহজে ঘুম আসেনা । সেবন করতে হয় বিভিন্ন ঔষধ । এতে যেমন শারীরিক ক্ষতি হয় পাশাপাশি অর্থকরীও প্রচুর নষ্ট হয় । যারা নিয়মিত পরিশ্রম করে তাদের নিয়মিত ঘুম হয় । রাস্তাঘাটে রিকশা ড্রাইভারদের দেখুন । যাত্রী না পেলে অনেক সময় রোদের মধ্যেও গাড়িতে বসে ঘুমায় । এটা কেন ? পরিশ্রম বেশি হওয়ার কারণে । ভালো ঘুমের জন্য সাধ্যমত পরিশ্রমের কাজ বেছে নেওয়া যেতে পারে ।‌ আর এক্ষেত্রে কাবাডি খেলাও বেশ পরিশ্রমের একটি খেলা ।‌ এটা নিয়মিত খেললেও ভালো ঘুম হবে ইনশাল্লাহ ।‌

আরো পড়ুন –

হকি খেলার নিয়ম 

ক্রিকেট টুর্ণামেন্ট নিয়মাবলী

বিশ্বের সেরা ১০ ফুটবলারের তালিকা

খেলাধুলা নিয়ে বক্তব্য

শেষকথাঃ

 

কাবাডি খেলার উপকারিতা । কাবাডি খেলার নিয়ম নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করার চেষ্টা করেছি আলহমদুলিল্লাহ । আশা করি এই লেখাটি পড়ে আপনারা উপকৃত হয়েছেন । কাবাডি খেলা নিয়ে আরো যদি কোন তথ্য জানার থাকে তবে আমাদের কমেন্ট করে জানাতে পারেন । আমরা চেষ্টা করবো আপনাদের কে তথ্য দিয়ে সহযোগীতা করার।  আজ আর কথা বাড়াচ্ছি না বিদায় নেবার পালা। আগামীতে আাবার আপনাদের সাথে দেখা হবে অন্য কোন বিষয়ে । ততক্ষন পর্যন্ত ভালো থাকুন সুস্থ থাকুন স্পোর্টস আওয়ারের সাথেই থাকুন ।

 

লিখেছেনঃ শরীফ আহমাদ

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *